ফেনী
বৃহস্পতিবার, ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১১:৫৬
, ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি
শিরোনাম:
মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রী করায় মস্কো বেকারসসহ ৪ প্রতিষ্ঠানের জরিমানা দাগনভূঞা প্রেস ক্লাবের নির্বাচনে সভাপতি সুমন, সম্পাদক রনি ফেনীতে শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ফেনীর প্রবীণ সাংবাদিক শাহজালাল রতনের দাফন দেড় বছরের সাজা এড়াতে ৭ বছর পালিয়ে থেকেও রক্ষা হলো না দাগনভূঞা লন্ডনী নাছের প্লাজা পরিদর্শনে মাসুদ  চৌধুরী এমপি  ফাজিলপুরে ব্যবসায়ীর স্বর্ণ চুরির ১০ দিনে রহস্য উদঘাটন, গ্রেফতার ৬ ফেনী আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপি-জামাত সমর্থিত প্যানেল’র সংখ্যাগরিষ্ঠ জয় জিয়াউদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর মৃত্যুতে খেলাঘর ফেনী জেলা কমিটির শ্রদ্ধাঞ্জলি ফের বাংলাদেশি ছবিতে ঋতুপর্ণা

অনিরাপদ খাদ্যে বাংলাদেশের ক্ষতি ১১০ কোটি ডলার

কথা ডেস্কঃ বিশ্বব্যাপী অনিরাপদ খাদ্যের অর্থনৈতিক ক্ষতি বাড়ছে। বিশ্বব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশে বছরে এ ক্ষতির পরিমাণ ১১০ বিলিয়ন বা ১১ হাজার কোটি ডলার।

সংস্থাটি জানিয়েছে, এর মধ্যে খাদ্যসংশ্লিষ্ট রোগের কারণে মানুষের উৎপাদনশীলতা কমায় ক্ষতির পরিমাণ ৯ হাজার ৫০০ কোটি ডলার এবং এসব রোগের চিকিৎসা ব্যয় ১ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। বিশ্বব্যাংকের ‘দ্য সেইফ ফুড ইমপারেটিভ’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। বুধবার প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়।

এতে বলা হয়েছে, খাদ্যসংশ্লিষ্ট রোগের কারণে মানুষের উৎপাদনশীলতা কমায় প্রতি বছর সবচেয়ে বেশি আর্থিক ক্ষতি হয় চীনের। দেশটির ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৩ হাজার ১০০ কোটি ডলার। আর্থিক ক্ষতির দিক থেকে দ্বিতীয় ভারত।

দেশটির ক্ষতি প্রায় ১ হাজার ৬৫০ কোটি ডলার। তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ইন্দোনেশিয়া, ক্ষতি ৭০০ কোটি ডলার। নাইজেরিয়ার (চতুর্থ) ক্ষতি ৬৭৫ কোটি ডলার। তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান দশম। ক্ষতি পরিমাণ প্রায় ১১০ কোটি ডলার। পকিস্তানে বছরে ক্ষতি ১২০ কোটি ডলার, দেশটির অবস্থান নবম। ২০১৬ সালের তথ্যের ভিত্তিতে এ তালিকা প্রকাশ করেছে বিশ্বব্যাংক।

নিরাপদ খাদ্যসংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে দেশগুলোকে কয়েকটি প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপের কথা বলেছে বিশ্বব্যাংক। এগুলো হচ্ছে- বড় বিনিয়োগ, এ সংক্রান্ত শক্তিশালী নিয়ন্ত্রক সংস্থা গঠন এবং খাদ্যাভাস পরিবর্তনে কাজ করা। অনিরাপদ খাদ্য, খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা, মানব উন্নয়ন, বৃহত্তর খাদ্য অর্থনীতি এবং আন্তর্জাতিক বাণিজ্যকে ক্ষতিগ্রস্ত করে বলেও জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

ট্যাগ :

আরও পড়ুন


Logo