ফেনী
বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ৭:০৯
, ১৩ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

ফেনীতে ব্যাপক চাঞ্চল্য

মামলার তদন্তকালে নায়িকা পরীমনির সাথে ডিবি কর্মকর্তা সাকলায়েনের প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে যে মুহূর্তে দেশজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে,ঠিক সেই মুহূর্তে ব্যবসায়ীকে আটক করে ২০টি স্বর্ণের বার ডাকাতি ও লুন্ঠন করার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার হন ফেনী গোয়েন্দা পুলিশের ওসি সাইফুল ইসলামসহ ছয় পুলিশ কর্মকর্তা। মঙ্গলবার রাতে বিষয়টি জানাজানি হলে ফেনীর সর্বত্র ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়।

ফেনীর পুলিশ সুপার খন্দকার নুরুন্নবী জানিয়েছেন, রোববার বিকালে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন স্বর্ণ ব্যবসায়ী গোপাল কান্তি দাস। ফেনীর ফতেহপুর রেলক্রসিং এলাকায় পৌঁছালে ডিবি পুলিশের ওই সদস্যরা তার গাড়ি থামান। এ সময় ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ২০টি স্বর্ণের বার ছিনিয়ে নেন তারা। এ ঘটনায় গোপাল কান্তি থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।পুলিশ তদন্ত করে চার জনকে শনাক্ত করে আটক করে। তাদের দেওয়া তথ্যে অন্য দুজনকে আটক করা হয়। ব্যবসায়ীর করা মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।এসময় তাদের কাছ থেকে ১৫ টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। বাকি পাঁচটি স্বর্ণের বার উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় ডিবি পুলিশের ওই ছয় কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশের নির্ভরযোগ্য একটি সুত্র জানিয়েছেন, ওই ব্যবসায়ীকে আটক করে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে স্বর্ণের বারগুলো লুট করে তাকে ছেড়ে দেয় ফেনী গোয়েন্দা পুলিশ। এ ঘটনায় ব্যবসায়ী গোপাল কান্তি দাশ ফেনীর পুলিশ সুপারের সহযোগিতা নিয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।এরপরই বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে পুলিশ। ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় ডিবি ওসিসহ চারজনকে শনাক্ত করে আটক করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যে অন্যদুজনকে আটক করা হয়।এ ঘটনায় তাদের বিরুদে থানায় ডাকাতি ও মালামাল লুন্টনের অভিযোগে মামলা রেকর্ড করে তাদেরকে গ্রেফতার দেখানো হয়।মামলায় বাদী উল্লেখ করেন ডাকাতি ও লুন্ঠনকৃত  ২০টি স্বর্ণের বারের মূল্য ১ কোটি ২৩ হাজার ৪ হাজার ৫ শ ৯৭ টাকা। ওজন ২২৪২.৫০ গ্রাম।

এদিকে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় ব্যবস্থা গ্রহন করায় পুলিশ সুপার খন্দকার নুরুন্নবীর প্রশংসা করে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে দেখা গেছে।

ট্যাগ :

আরও পড়ুন


Logo